২০১৫ সালের অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের অন্যতম পেসার ছিলেন তরুণ তাসকিন আহমেদ। কিন্ত ৪ বছর পর আরেকটি বিশ্বকাপে আগের চেয়ে পরিণত সেই তাসকিনের জায়গা হলো না এবারের বিশ্বকাপ দলে। অবশ্য এজন্য নির্বাচকদের যতটা না দোষ দিবেন তিনি, তার চেয়ে ভাগ্যকে দুষতে পারেন এই গতি তারকা। কারণ, বিপিএলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের সুবাদে তাকে নিউজিল্যান্ড সফরে দলে রেখেছিলেন নির্বাচকরা।

কিন্তু সেই বিপিএলের শেষ দিকে চোট পাওয়ায় নিউজিল্যান্ড সফরের দল থেকে বাদ পড়েন তাসকিন আহমেদ। চোটের সঙ্গে লড়াইয়ে জিতে মাঠে ফিরলেও তার ফিটনেস নিয়ে সন্তুষ্ট নন নির্বাচকরা। তাই জায়গা মেলেনি এই তরুণ পেসারের।

হয়তো একটু কষ্টটা বেশিই হচ্ছে বাংলাদেশের এ পেসারের। কারণ তিনি বার বার বলেছিলেন সব কিছুর বিনিময়ে বিশ্বকাপ খেলতে চান। মঙ্গবার বিসিবির ঘোষিত দলে জায়গা না পেয়ে নিজের আবেগটা ধরে রাখতে পারেননি। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন তাসকিন। কোন প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে অঝরে কেঁদেছেন তিনি।

এসময় সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন, আপনাকে তো অন্তত ত্রিদেশীয় সিরিজে একটা সুযোগ দিয়ে দেখতে পারতো ফিটনেস ঠিক আছে কিনা? জবাবে কান্নাজড়িত কণ্ঠে তাসকিন বলেন, সবাই যেটা ভালো মনে করেছেন-সেটাই করেছেন। এরপর সাংবাদিকরা আরও কিছু প্রশ্ন করেন। কিন্তু তাসকিন কাঁদতে কাঁদতে সেখান থেকে বিদায় নেন।