শুধু বিশ্বকাপ খেলাই নয়, অধিনায়ক হিসেবে খেলার কথা ছিল লাসিথ মালিঙ্গার। তবে, বিশ্বকাপের ঠিক আগে অধিনায়কত্ব হারানোর জের ধরে বিশ্বকাপের আগেই অবসর নিয়ে বসতে পারেন এই পেসার।

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের জন্য গতকাল ১৫ সদস্যের দল ঘোষনা করেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। দলের অনেকগুলো চমক। তবে সবচেয়ে বড় চমক অধিনায়কের পদ। গেল চার বছর কোন ওয়ানডেই খেলেননি সেই দিমুথ করুনারত্মকেই বিশ্বকাপের জন্য অধিনায়ক নির্বাচিত করা হয়েছে। যা নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে। তবে কিছু খেলোয়াড় খুব ক্ষুব্ধ বোর্ডের এমন সিদ্বান্তে।

তারই রেশ ধরে সদ্য সাবেক হয়ে যাওয়া ওয়ানডে অধিনায়ক লাসিথ মালিঙ্গা বিশ্বকাপের আগেই অবসরের ইঙ্গিত দিয়ে দিলেন। দল ঘোষণার ঘন্টা খানেক পর শ্রীলঙ্কা খেলোয়াড়দের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে নিজের ভাবনা ব্যক্ত করেন মালিঙ্গা। সেখানে তিনি লেখেন, ‘মাঠে আমাদের আর হয়তো দেখা হবে না। আমার পাশে যারা ছিলেন, ঈশ্বর তাদের মঙ্গল করুন।’

অবশ্য দল ঘোষনার আগে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের প্রধান নির্বাচক ফোন করেছিলেন মালিঙ্গাকে। তার কাছে প্রধান নির্বাচক জানতে চান- অধিনায়ক না হলে তিনি কি বিশ্বকাপে খেলবেন না। তখন কিছুই বলেননি মালিঙ্গা। কিন্তু পরে ঠিকই নিজের অবসর নিয়ে ইঙ্গিত দিয়েছেন ডানহাতি অভিজ্ঞ পেসার।

তবে মালিঙ্গার অধিনায়কত্ব নিয়ে এত আগ্রহ পছন্দ নয় তাঁদের, ‘আমরা নিশ্চিত নই সে এভাবে বিদায়ের ইঙ্গিত দিয়ে কী বলতে চাচ্ছে। মালিঙ্গার জানা উচিত, দেশের হয়ে খেলা অধিনায়কত্বের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সে যে ১৪ ম্যাচে অধিনায়ক ছিল, তার ১৩ ম্যাচেই হেরেছে।’

মালিঙ্গা যদি তাঁর সিদ্ধান্তে অটল থাকেন, তবে বিকল্প ভেবে রেখেছে শ্রীলঙ্কা বোর্ড, ‘যদি সে সরে যায়, তবে তাঁর বিকল্প খুঁজে নেওয়ার যথেষ্ট সময় আছে।’ প্রতিবেদনে এটাও বলা হয়েছে, বিশ্বকাপের দল নির্বাচনে ভূমিকা রেখেছেন নতুন অধিনায়ক করুনারত্নেও!