3,749 total views, 7 views today

চলতি আইপিএল আসর দিয়েই বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে চেয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। তবে তার দল হায়দরাবাদ আসরের নিজেদের প্রথম ম্যাচ ছাড়া বাকি সব ম্যাচেই তাকে বাইরে রেখে একাদশ সাজিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে আঙুলের ইনজুরি কাটিয়ে ক্রিকেট মাঠে ফেরা সাকিবের অনুশীলনে কিছুটা ঘাটতি পড়েছে। সেই ঘাটতি পোষাতে গুরু সালউদ্দীনকে ভারতে ডেকেছেন সাকিব আল হাসান।

২০ মার্চ চিকিৎসকের কাছ থেকে খেলার ছাড়পত্র পাওয়ার কয়েকদিন পরেই আইপিএল খেলার উদ্দেশ্যে ভারতে যান সাকিব। প্রথম ম্যাচটির একাদশে সুযোগ পেয়ে বোলিংয়ে ভালো করতে পারেননি তিনি। আর সুযোগ আসেনি ব্যাটিং করার। এরপর দলের কম্বিনেশনে পরের চারটি ম্যাচেই সাইডবেঞ্চে বসেই কাটাতে হচ্ছে সাকিবকে। এতে ম্যাচ খেলার সঙ্গে সঙ্গে আশানুরূপ ব্যাটিং বোলিং অনুশীলনের ঘাটতি থেকে যাচ্ছে সাকিবের।

সাকিব তার এই গুরুকে ডেকেছেন একটু আলাদা করে ব্যাটিং এবং বোলিং প্র্যাকটিস করার জন্য। সবকিছু ঠিক থাকলে ১৩ এপ্রিল ভারতে থাকা সাকিবের কাছে যেতে পারেন কোচ সালাউদ্দিন। এবার আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলার পরই টম মুডির রিজার্ভ বেঞ্চে চলে গেছেন তিনি।

এ অবস্থায় শিষ্যের পাশে থাকাকে দায়িত্ব মনে করছেন সালাউদ্দিন, ‘সাকিব চাচ্ছে ভারতে গিয়ে কয়েকটা দিন ওর প্র্যাকটিসে থাকি আমি। সেভাবে একটা প্রস্তুতিও নিয়ে রেখেছি। লীগ শেষ হলে এক-দুই দিনের মধ্যেই যাওয়ার পরিকল্পনা আছে।’

অবশ্য ২০ বা ২১ এপ্রিল ভারত থেকে দেশে ফিরতে হতে পারে সাকিবকে। বিসিবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা চান ২২ এপ্রিল জাতীয় দলের ক্যাম্পেও শুরুর দিনই নির্বাচিত ক্রিকেটাররা প্র্যাকটিসে যোগ দিক। এক সপ্তাহের প্রস্তুতি সেরে একসঙ্গে ঢাকা থেকেই আয়ারল্যান্ডে যাক পুরো দল। বোর্ড ও টিম ম্যানেজমেন্টের এ সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে হয়তো শুরু থেকেই অনুশীলনে যোগ দিতে হবে সাকিবকে। তবে সাকিব আইপিএলে নিয়মিত ম্যাচ খেললে অন্যরকম হলেও হতে পারত।