বিশ্বকাপের আগে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। বিশেষ করে স্লগ ওভারে ধোনির ব্যাট এক কথায় অসাধারণ। চলতি আইপিএলে দুর্দান্ত খেলছেন চেন্নাই সুপার কিংসের এই অধিনায়ক। চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে মাত্র ১ রানে রোমাঞ্চকর জয় পেল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। ফলে ১০ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে প্লে অফের আশা জিইয়ে রাখল আরসিবি। ১৬১ রান তাড়া করতে নেমে চেন্নাই থামল ১৬০ রানে। মাত্র ৪৮ বলে ৮৪ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেও মহাকাব্য রচনা করা হল না আর। শেষ বলে ২ রান করতে না পেরে শেষ অবধি চেন্নাই ম্যাচ উপহার দিল আরসিবিকে।

রোববার বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ব্যাটিং তাণ্ডব চালান ভারতকে দুটি বিশ্বকাপ ট্রফি উপহার দেয়া ধোনি। তবে ৪৮ বলে ৮৪ রানের ইনিংস খেলেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক ধোনি। শেষ ৬ ওভারে বাকী ছিল ৭৬ রান। সেখান থেকে শুরু হয় ধোনি ধামাকা। তার আগে ধোনি স্ট্রাইক বদলে খেলছিলেন। কারণ ওপেনার থেকে মিডল অর্ডার, কেউই এদিন ভালো খেলতে পারেননি। শ্যেন ওয়াটসন (৫), ফ্যাফ ডু প্লেসি (৫), সুরেশ রায়না (০) ব্যর্থ হন।

তার ইনিংসটি ছিল ৫টি চার ও ৭টি দৃষ্টি নন্দন ছক্কায় সাজানো। বিশেষ করে ২০তম ওভারের প্রথম বলটি ১১১ মিটারের ছক্কাটি স্টেডিয়ামের বাইরে চলে যায়। চার নম্বরে নামা অম্বাতি রায়াডুকে সঙ্গে নিয়ে ধোনি ইনিংস গড়েন। রায়াডু ২৯ করে ফিরে গেলে ধোনি ম্যাচ জেতাতে নেমে পড়েন। শেষ ৪ ওভারে বাকী ছিল ৫৭ রান। এক ওভারে জেতার জন্য় প্রয়োজন ছিল ২৬ রান। ধোনি উমেশ যাদবের ওভারের প্রথম পাঁচটি বলে তিনটি ছয় ও একটি চারের সুবাদে ২৪ রান তুলে দিয়েছিলেন।

শেষ ৬ বলে যখন চেন্নাইয়ের দরকার ২৬ রান। তখনও দমে যাননি ধোনি। চার-ছক্কার ফুলঝুরি দিয়ে প্রথম ৫ বলে করে ফেলেন ২৪ রান। জয়ের জন্য শেষ বলে প্রয়োজন ছিল মাত্র দুই রান। কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে ব্যাট ঠিকমতো টাইমিং করতে পারেননি সাবেক বিশ্বকাপ জয়ী এ অধিনায়ক। মাত্র ১ রানের পরাজয় নিয়ে মাঠ ত্যাগ করতে হয়েছে তাকে।

রোববার আইপিএলের চলতি আসরের ৩৯তম ম্যাচে মুখোমুখি হয় চেন্নাই ও বেঙ্গালুরু। এদিন টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে আরসিবি তুলেছিল ১৬১। তবে প্রথমেই আট বলে নয় রান করে চাহারের বলে ধোনিকে ক্যাচ দিয়ে আউট হয়ে গেলেন বেঙ্গালুরু অধিনায়ক।

দ্বিতীয় উইকেটে ব্যাট করেন এবি ডি ভিলিআর্স ও পার্থিব প্যাটেল। ১৯ বলে ২৫ রান করে আউট হন এবি ডি ভিলিয়ার্স। এছাড়া অক্ষদীপ নাথ ২০ বলে ২৪ রান করলেন তিনি। ১৩ ওভারেই ১০০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে গেল বেঙ্গালুরু। ডোয়েন ব্র্যাভোর বলে ওয়াটসনকে ক্যাচ দিয়ে পার্থিব প্যাটেল ফেরার আগে ৩৭ বল থেকে করেন ৫৩ রান।

শেষ দিকে ১৩ বলে ১৪ রান করে আউট হন মার্কাস স্তইনিস। ছয় বলে পাঁচ রান করে আউট হলেন নেগি। ১৬ বলে ২৬ রান করে আউট হলেন মইন আলি। ২০ ওভারে বেঙ্গালুরু থামল ১৬১-৭-এ।

১৬২ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে চেন্নাই। মাত্র ২৮ রানে চার উইকেট হারিয়ে চরম বিপর্যয়ে পড়ে যায়। ঠিক ওই জায়গা থেকেই দলকে টেনে তুলেছিলেন মাহেন্দ্র সিং ধোনি।