শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে রহস্য ছিল আগেই। বাথটব থেকে মিলেছিল নায়িকার দেহ। বলিউডের হার্টথ্রবের অকাল প্রয়াণ কাঁপিয়ে দিয়েছিল দেশবাসীকে। বছর ঘুরে যাওয়ার পর ফের সেই মৃত্যু নিয়ে সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য।

প্রাথমিক রিপোর্টে আকস্মিক মৃত্যু বলা হলেও, অনেকেই দাবি করেছিলেন, ঠান্ডা মাথায় ছক কষে খুন করা হয়েছিল অভিনেত্রীকে। এই ঘটনার সঙ্গে তাঁর স্বামী বনি কাপুর জড়িত থাকতে পারেন, এমন সন্দেহও তৈরি হয়েছিল। তারপর থেকেই শ্রীদেবীর মৃত্যু ঘিরে তৈরি হয় ধোঁয়াশা। কিন্তু তদন্তে কোনওরকম গলদ না পেয়ে মামলা শেষ করে পুলিশ। এমনকি, গতবছর মে মাসে দেশের শীর্ষ আদালতের তরফেও খারিজ করে দেওয়া হয় এই মামলা।

ভারতীয় জেলের ডিজিপি ঋষিরাজ সিং এই অভিনেত্রীর মৃত্যু নিয়ে নতুন ক‌রে বিতর্ক তৈ‌রি ক‌রে‌ছেন। শ্রী‌দেবীর মৃত্যু‌কে দুর্ঘটনা বলে মেনে নিতে নারাজ তি‌নি। তার দা‌বি প‌রিক‌ল্পিতভা‌বে খুন করা হ‌য়ে‌ছে শ্রী‌দেবী‌কে।

ঋষিরাজ বলেন, আমার বন্ধু প্রয়াত ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ ড. উমাধাথন অনেক দিন আগে আমাকে জানিয়েছিল অভিনেত্রী শ্রীদেবীর মৃত্যুর নেপথ্যে খুন হয়ে থাকতেই পারে। কিন্তু এটা কখনই দুর্ঘটনাবশত মৃত্যু নয়।

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে দুবাইয়ের এক পারিবারিক বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে শ্রী‌ দেবীর মৃত্যু হয়। হোটেলের বাথরু‌মের বাথট্যাবে ডুবে গিয়ে শ্রীদেবীর মৃত্যু হ‌য়ে‌ছে ব‌লে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়। সেই সময়ও এই রি‌পোর্ট বিশ্বাস ক‌রেন‌নি অ‌নে‌কেই। নতুন করে তদন্তের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারসস্থ হয়েছিলেন এক পরিচালক। তা‌তেও তেমন কো‌নো লাভ হয়‌নি।

শ্রী‌দে‌বীর মৃত্যুর দেড় বছর পর ঋষিরাজ সিং সেই আগু‌নেই ঘি ঢে‌লে‌ছেন। তি‌নি জানান, তার বন্ধু ড. উমাধাথন তাকে বলেছেন, একজন মানুষ যতই মদ্যপ থাকুক না কেন এক হাঁটু জলে ডুবে যাবে না। সে তখনই ডুবে যাবে যখন তার পা ধরে টানা হবে এবং মাথা জলে চুবিয়ে রাখা হবে। এই মন্তব্যের পর থেকেই শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে আবারও বিত‌র্কের ঝড় উ‌ঠে‌ছে ব‌লিউ‌ডে।