বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরে এসে অনেকেই সমালোচনা করেছিলেন দশ দলের টুর্নামেন্টে এটা কেমন বিশ্বকাপ! এবার সেই প্রশ্ন থেকে মাস না পেরোতেই ক্রিকেটের বিশ্বায়নের লক্ষ্যে ২০২৩ বিশ্বকাপের রোড টু প্রকাশ করেছে আইসিসি। যেখানে থাকছেনা কোন র‍্যাঙ্কিং!

২০২৩ ক্রিকেট বিশ্বকাপের মুল পর্বে খেলবে দশ। তবে এই দশ দলের জন্য লড়বে ৩২ দল! তবে সুযোগ সবার সমান থাকছেনা। সমীকরন কঠিন হয়ে দাড়িয়েছে বাংলাদেশের জন্যও।

২০২৩ বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে ভারতে। সহযোগী দেশ হওয়ার কথা রয়েছে বাংলাদেশেরও। তবে সেটি নিশ্চিত নয়। স্বাগতিক হিসেবে সরাসরি বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলবে ভারত। অন্য দল গুলো লড়তে হবে নিজেদের জায়গা করে নিতে।

সুপার লীগে অংশগ্রহণ করবে টেস্ট খেলুড়ে ১২ দল ও নেদারল্যান্ডস। যেখানে প্রত্যেক দল খেলবে ২৪ টি করে ওয়ানডে ম্যাচ। হোম ও এ্যাওয়ে সিরিজের মাধ্যমে সেই ম্যাচ গুলো খেলবে তারা। সব দলের ম্যাচ শেষে সেরা সাত দল সাথে ভারত মোট ৮ দল খেলবে মুল পর্বে।

বাকি পাঁচ দল খেলবে বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ার ২ এর ৩ দলের সাথে। সেখান থেকে বাকি ২ দল নির্ধারিত হবে। কোয়ালিফায়ারে ৩ দলও নির্ধারিত হবে দুইভাবে। কোয়ালিফায়ারের শীর্ষ দুই দল আসবে র‍্যাঙ্কিংয়ের ১৩-২০ এর আটদলের মধ্য থেকে।

আর অন্য ১ দল বিশ্বকাপ চ্যালেঞ্জ এ ও বি গ্রুপ থেকে শীর্ষ দুই ও কোয়ালিফায়ারের বাদ পড়া দলদের নিয়ে বাছাইপর্ব থেকে নির্ধারিত হবে। বিশ্বকাপ ক্রিকেট চ্যালেঞ্জ কাপে অংশ নেবে ৩২ র‍্যাঙ্কিং পর্যন্ত থাকা দল।

এ হিসেবে কঠিন পথ পাড়ি দিতে হবে বাংলাদেশকে। সুপার লীগে সেরা সাতে না থাকতে পারলে যেতে হবে দ্বিতীয় বাছাইয়ে। সেখান থেকে শীর্ষে না থাকতে পারলে শেষ হবে বিশ্বকাপ।

তবে আরেকদিক থেকে সুপার লীগ থেকেই বিশ্বকাপের মুল পর্বে খেলার আশা করতে পারে টাইগার ভক্তরা। কেননা বাংলাদেশের ২৪ টি ওয়ানডের ৮ টি সিরিজ গুলোতে নিজেদের দেশের মাটিতে প্রতিপক্ষ হিসেবে থাকছে, উইন্ডিজে, শ্রীলঙ্কা, ইংল্যান্ড ও আফগানিস্তান। আর টাইগাররা দেশের বাইরে খেলবে আয়ারল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে, আয়ারল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

ইতির চোখে পানি বিক্রি হয়নি ভাগ্যরাজ , ২০২০ সালে ৭০ মণ ওজন করে বিক্রি করবেন: