২৭ বছর ধরে তো ফাইনালেই উঠতে পারে না ইংল্যান্ড। ট্রফির লড়াই পর্যন্ত যাওয়ার আক্ষেপটাই তো ক্রিকেটের জনকদের কাটছিল না। অবশেষে প্রতীক্ষার অবসান হলো। ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে নাম লেখালো ইংলিশরা। সেটাও আবার দুর্দণ্ড প্রতাপ দেখিয়ে। আজ পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে ৮ উইকেট আর ১০৭ বল হাতে রেখে হারিয়ে শিরোপা লড়াইয়ের মঞ্চে উঠেছে ইয়ন মরগানের দল।

এর আগে ১৯৭৯, ৮৭ ও ৯২ এর বিশ্বকাপে ফাইনাল খেললেও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি দলটি। ইংল্যান্ডের বার্মিংহামে আট উইকেটের বিশাল ব্যবধানে অজিদের হারিয়ে দ্বিতীয় দল হিসেবে ফাইনাল নিশ্চিত করে স্বাগতিকরা। সেই ১৯৯২ সাল। সর্বশেষ বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলেছিল ইংল্যান্ড। সেবার ইমরান খানের পাকিস্তানের কাছে ২২ রানে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল ইংলিশদের। তারপর আর ফাইনালেই উঠা হয়নি। আজ (বৃহস্পতিবার) সে আক্ষেপ ঘুচালো ক্রিকেটের জনকরা।

ইংল্যান্ডের জন্য অবশ্য ফাইনাল বরাবরই এক আফসোসের নাম। ১৯৭৯ সালে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের দ্বিতীয় আসরেই ফাইনালে উঠেছিল ইংলিশরা। কিন্তু তখনকার পরাক্রমশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ৯২ রানে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয়।

তারপর এক আসর বিরতি দিয়ে ১৯৮৭ সালে আবারও ফাইনালে, আবারও স্বপ্নভঙ্গ। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি অস্ট্রেলিয়ার কাছে সেবার ইংলিশরা হেরে গিয়েছিল মাত্র ৭ রানে। তারপর ১৯৯২-তে টানা দ্বিতীয় বিশ্বকাপ ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে হার।

এবার সে আক্ষেপ ঘুচানোর সবচেয়ে বড় সুযোগ। ফর্ম বিবেচনায় ইংল্যান্ডই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এবারের ফাইনালে থাকবে ফেবারিট। তবে কি এবারই ইতিহাস গড়ে শিরোপা উল্লাসে মাতবেন মরগান-রুট-আর্চাররা? নাকি আরও একবার পুরোনো যন্ত্রণাই বুকের মধ্যে কাঁটা দেবে? উত্তরটা সময়ের হাতেই তোলা থাক!