বাংলাদেশের সমর্থকরা এই ম্যাচটার দিকে তাকিয়ে ছিলেন। সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান বলছে, শ্রীলঙ্কার থেকে বাংলাদেশ শক্তিমত্তায় বেশ এগিয়ে। এই ম্যাচটিতে তাই পূর্ণ ২ পয়েন্ট পাওয়ার আশায় ছিলেন টাইগার ভক্ত-সমর্থকরা।

সেই আশায় জল ঢেলে দিল বৃষ্টি। ব্রিস্টলে দিনভর বৃষ্টির প্রকোপে মাঠ প্রস্তুত করা যায়নি। দুই দফা মাঠ পরিদর্শন করেও ইতিবাচক কিছু জানাতে পারেননি আম্পায়াররা। অবশেষে ঘোষণা এলো ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ারই। স্থানীয় সময় ১টা ৫৭ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় ৬টা ৫৭) ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছেন আম্পায়াররা।

জিতলে ২ পয়েন্ট। এই ম্যাচটি পরিত্যক্ত হওয়ায় পয়েন্ট ভাগাভাগি করতে হলো দুই দলকে। অর্থাৎ বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা দুই দলই পেয়েছে ১ পয়েন্ট করে।

আদতে এই জায়গায় লঙ্কানদের চেয়ে বাংলাদেশই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলা যায়। খেলা হলে টাইগাররা জিততই, এমনটা হয়তো নিশ্চিত ছিল না। কিন্তু ম্যাচটা পরিত্যক্ত হওয়ায় সেমিফাইনালে যাওয়ার পথটা অনেকটাই সংকীর্ণ হয়ে গেল। কেননা এই ম্যাচে পূর্ণ ২ পয়েন্ট ধরেই শক্তিমত্তায় এগিয়ে থাকা দলগুলোর বিপক্ষে দু-একটি জয়ের হিসাব কষছিল বাংলাদেশ দল। সেখানে একটি পয়েন্ট হারিয়ে এখন কিছুটা বিপদে পড়ে গেল মাশরাফি বাহিনী।

বাংলাদেশ দলের কোচ স্টিভ রোডসও আর সবার মতো হতাশ। খেললেই যে জয় নিশ্চিত ছিল, এমনটা বলছেন না তিনিও। তবে আশা তো ছিলই। রোডস বলেন, ‘আমি জানি শ্রীলঙ্কা হয়ত শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করতো। তারপরও আমরা জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। কিন্তু কি আর করা, খেলাই তো হলো না! সত্যিই হতাশার। কিন্তু কিছু বলারও নেই। প্রকৃতির ওপর কারো হাত নেই। তাই ম্যাচ না হওয়ায় মন খারাপ হলেও তা মেনে নিতে হচ্ছে।’

বিশ্বকাপ এর পয়েন্ট টেবিল ঃ